এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি, যোগ্যতা ও পদ্ধতি

প্রিয় চাকুরীপ্রার্থীগণ, কেমন আছেন সবাই? আশা করি সবাই ভাল আছেন। আপনারা জেনে আনন্দিত হবেন যে কয়েকদিন আগে এনটিআরসিএ ২০২৩ সালের ১৮ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি কিভাবে নিবেন এবং বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের জন্য শিক্ষকদের নিয়োগ যোগ্যতা কি কি ও পদ্ধতি সম্পর্কে আজকের আলোচনায় বিস্তারিত জানাব।

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি, যোগ্যতা ও পদ্ধতি
এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি, যোগ্যতা ও পদ্ধতি

 

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার আদি কথা:

আমরা সকলেই জানি যে, বাংলাদেশে  নিম্ন- মাধ্যমিক, মাধ্যমিক, কলেজ, মাদ্রাসা এবং কারিগরিসহ প্রায় ৩৬ হাজার বেসরকারি (non-government) শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এনটিআরসিএ এর অধীনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে প্রায় প্রতি বছর শিক্ষক নিয়োগের প্রয়োজন রয়েছে। তাই বর্তমানে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যোগ্যতার ভিত্তিতে নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন অন্তে যোগ্যতাসম্পন্ন শিক্ষক নি​য়োগ জরুরি। তাই প্রতিটি বেসরকারি শিক্ষক প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগের লক্ষ্যে ২০০৫ সাল থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে এনটিআরসিএ (NTRCA) বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যোগ্যতা সম্পন্ন শিক্ষক নিয়োগের কাজ করে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে এখন পর্যন্ত ১৭ টি নিবন্ধন পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ বিসিএস পরীক্ষা পদ্ধতি সম্পর্কে গোপনীয় ট্রিক্স জানুন

বিসিএস পরীক্ষা পদ্ধতি সম্পর্কে গোপনীয় ট্রিক্স জানুন
বিসিএস পরীক্ষা পদ্ধতি সম্পর্কে গোপনীয় ট্রিক্স জানুন

এ দেশের কোনো বেসরকারি বিদ্যালয় বা কলেজে এনটিআরসিএ কর্তৃক নিবন্ধন সার্টিফিকেট ব্যতীত চাকরীর কোন সুযোগ নেই। অর্থাৎ এই প্রতিষ্ঠানের নেওয়া প্রিলিমিনারি, লিখিত এবং ভাইভা পরীক্ষায় পাশ করে সার্টিফিকেট পেলেই এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধনের চাকরি পেতে পারেন। এজন্য এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ অন্তে  শিক্ষকতায় ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা বাধ্যতামূলক।

শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার যোগ্যতাঃ

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে হলে আপনাকে সর্বপ্রথম এই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার জন্য যেকোন বিষয়ে আপনাকে কমপক্ষে স্নাতক (সম্মান) পাস করতে হবে।

অন্যদিকে স্কুল পর্যায়- ২ এর জন্য মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে আলিম বা এইচএসসি পাশে আবেদন করা যাবে মর্মে এনটিআরসিএ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২৩ এ উল্লেখ আছে।

সেমিফাইনালের ম্যাচ দেখুনঃ ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড হেড টু হেড পরিসংখ্যান (ট্রেন্ডিং নিউজ)

ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড হেড টু হেড পরিসংখ্যান (ট্রেন্ডিং নিউজ)
ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড হেড টু হেড পরিসংখ্যান (ট্রেন্ডিং নিউজ)

তবে যারা অনার্স, আলিম বা এইচএসসি সদ্য পাশ করেছেব সেসব প্রার্থীরা সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে দেওয়া প্রশংসাপত্র, মার্কশিট এবং প্রবেশপত্র দিয়ে আবেদন করতে পারবেন।

আরো পড়ুন: ৭ম শ্রেণিতে কিভাবে সাইবার নিরাপত্তা এবং নাগরিক সেবা হেল্প তৈরি করবেন

৭ম শ্রেণিতে কিভাবে সাইবার নিরাপত্তা এবং নাগরিক সেবা হেল্প তৈরি করবেন
৭ম শ্রেণিতে কিভাবে সাইবার নিরাপত্তা এবং নাগরিক সেবা হেল্প তৈরি করবেন

ইহা সকল পরীক্ষার্থীদের মনে রাখতে হবে যে, নিবন্ধন পরীক্ষায় আবেদনের ক্ষেত্রে প্রতিটি প্রার্থীর শিক্ষাজীবনে যেকোনো একটি তৃতীয় বিভাগ বা এর সমমনা জিপিএর ফলাফল থাকতে হবে।

এ ক্ষেত্রে প্রার্থীর শিক্ষাজীবনে তৃতীয় বিভাগ বা এর সমমান জিপিএ একবারের বেশি হলে তিনি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য অনুপযুক্ত বলে বিবেচিত হবেন।

অন্যান্য চাকরির পরীক্ষায় আবেদনের পূর্বশর্ত হিসেবে আবেদনের ক্ষেত্রে যেমন ১৮-৩০ বছর বয়স পর্যন্ত চাওয়া হয় তাই শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষাতেও প্রার্থীর বয়স ১৮-৩৫ বছরের মধ্যে হতে হবে।

মোবাইলে লাইভ খেলা দেখুনঃ মোবাইলে লাইভ খেলা দেখার উপায় (বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০২৩)

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার পদ্ধতিঃ

২০২৩ সালের শেষে ১৮ তম এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি হিসেবে আপনাকে এ পরীক্ষার পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে হবে।

এনটিআরসিএ এর শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা ২টি পর্যায়ে হয়ে থাকে।

১৮ তম নিবন্ধন পরীক্ষার আবেদন শুরু ৯ নভেম্বর এবং আবেদনের শেষ সময় হলো ৩০ নভেম্বর ।

  • একটি স্কুল পর্যায়ে (স্কুল লেভেল এবং স্কুল লেভেল- ২)
  • অন্যটি কলেজ পর্যায়ে।

প্রথমত এনটিআরসিএ নির্দিষ্ট একটা দিনে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে থাকেন। এরপর অনলাইনে প্রার্থীরা আবেদন করেন। নির্ধারিত তারিখে প্রথমে ১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হয়। প্রিলিমিনারিতে ৪০% নম্বর পেলেই সাধারণত পাস ধরা হয়। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় এবং সবশেষে লিখিত পরীক্ষায় নম্বরের ভিত্তিতে মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হয়।

চূড়ান্তভাবে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের একটি সনদ প্রদান করা হয়। পরবর্তীতে এই সনদ দিয়ে এনটিআরসিএ বরাবর অনলাইনে আবেদন করে মেধাতালিকার ভিত্তিতে যেকোনো বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগ পাওয়া যাবে। প্রার্থীর এই সনদের মেয়াদ আজীবন থাকবে বলে এনটিআরসিএ এর নীতিমালায় উল্লেখ রয়েছে।

আরো পড়ুনঃ বিসিএস পরীক্ষার যোগ্যতা সম্পর্কে বিস্তারিত হিডেন তথ্য জানুন 2023

বিসিএস পরীক্ষার যোগ্যতা সম্পর্কে বিস্তারিত হিডেন তথ্য জানুন
বিসিএস পরীক্ষার যোগ্যতা সম্পর্কে বিস্তারিত হিডেন তথ্য জানুন

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন প্রিলিমিনারি পরীক্ষার মানবন্টনঃ

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে গেলে আমাদের সর্বপ্রথম বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন প্রিলিমিনারি পরীক্ষার মানবন্টন নিয়ে বিস্তারিত জানতে হবে।

তাই শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে প্রিলিমিনারি পরীক্ষার বিষয় ও মানবন্টন দেখে নেয়া যাক।

আমরা জানি যে, বাংলা বিষয়ে ২৫ নম্বর; ইংরেজিতে ২৫ নম্বর; গণিতে ২৫ নম্বর এবং সাধারণ জ্ঞানে ২৫ নম্বরসহ সর্বমোট ১০০ নম্বর বরাদ্দ থাকে।

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় ১০০ নম্বরের এমসিকিউ (Multiple Choice Questions) পরীক্ষা হয়। সময় বরাদ্দ থাকে ১ ঘণ্টা। প্রতিটি প্রশ্নের মান থাকবে ১ নম্বর। তবে প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য ০.৫০ নম্বর কাটা হবে।

যারা প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবে শুধু তারাই যেকোন একটি ঐচ্ছিক বিষয়ের উপর ১০০ নম্বরের ৩ ঘণ্টার শিক্ষক নিবন্ধন লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি ও সিলেবাসঃ

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে হলে বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি নেওয়া খুব বেশি জরুরী। গোছানো এবং পরিকল্পনামাফিক প্রস্তুতি ছাড়া আপনি কোনো পরীক্ষাতেই সফল হতে পারবেন না। একমাত্র নিয়মমাফিক সময়োপযোগী পড়াশুনায় আপনার সফলতা বয়ে আনবে। পত্র পত্রিকা থেকে শুরু করে চারিপাশের সব কিছু থেকে সাধারণ জ্ঞান আহরণ করা শিখতে হবে। তবেই যেকোন পরীক্ষায় আপনি ভাল করতে পারবেন। তাই আপনাদের কথা মাথায় রেখে আপনাদের জন্য শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার পূর্ণাঙ্গ সিলেবাস এখানে তুলে ধরব।

তবে প্রত্যেক বিষয়ে আলাদা আলাদা প্রস্তুতি নিতে সিলেবাস সম্পর্কে একটি স্বচ্ছ ধারণা থাকা দরকার।

এবার তাহলে শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার প্রিলিমিনারি পরীক্ষার সিলেবাসটি এক নজরে দেখে নেওয়া যাক-

আরো দেখুনঃ অনার্স থেকে বিসিএস প্রস্তুতি কিভাবে নেওয়া যায়?

অনার্স থেকে বিসিএস প্রস্তুতি কিভাবে নেওয়া যায়
অনার্স থেকে বিসিএস প্রস্তুতি কিভাবে নেওয়া যায়

বাংলা বিষয়ে প্রস্তুতি:

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি হিসেবে প্রথমে জেনে নেওয়া যাক বাংলা বিষয়ের উপর। এ বিষয়ে ২৫ নম্বরে ২৫ টি এমসিকিউ প্রশ্ন থাকবে। নিম্নোক্ত বাংলা ব্যাকরণের উপর নিবন্ধন পরীক্ষায় বাংলা বিষয়ে প্রশ্ন আসে।

  • ১) বিরাম বা যতি চিহ্ন
  • ২) বাগধারা
  • ৩) ভুল সংশোধন
  • ৪) যথার্থ অনুবাদ
  • ৫) সন্ধি
  • ৬) কারক ও বিভক্তি
  • ৭) সমাস ও প্রত্যয়
  • ৮) সমার্থক ও বিপরীতার্থক শব্দ
  • ৯) বাক্য সংকোচন
  • ১০) লিঙ্গ পরিবর্তন

উপরিউক্ত বিষয়ের উপর যথাসম্ভব প্রস্তুতি নিলে শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবেন।

বাংলায় বেশিরভাগ প্রশ্ন ব্যাকরণ থেকে হয়ে থাকে। সাহিত্য থেকেও অল্প কিছু প্রশ্ন থাকতে পারে। ব্যাকরণের জন্য ভাষারীতি ও বিরাম চিহ্নের ব্যবহার, বাগধারা ও বাগবিধি, ভুল সংশোধন বা শুদ্ধকরণ, যথার্থ অনুবাদ, সন্ধি বিচ্ছেদ, কারক ও বিভক্তি, সমাস ও প্রত্যয়, সমার্থক ও বিপরীতার্থক শব্দ, বাক্য সংকোচন ও লিঙ্গ পরিবর্তন পড়তে হবে। সাহিত্য অংশের জন্য প্রাচীন ও মধ্যযুগ সংক্রান্ত আগের প্রশ্ন, আধুনিক যুগের গুরুত্বপূর্ণ সাহিত্যকর্ম সমূহ, ছদ্মনাম, উপাধি, প্রবর্তক, পত্রিকা ও সাময়িকী সম্পর্কে জানতে হবে।

বাংলা বিষয়ে এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি এর জন্য গুরুত্বপূর্ণ বই হলো নবম-দশম শ্রেণির বাংলা ব্যাকরণ বই। সাহিত্যের জন্য অগ্রদূত বা এমপিথ্রি বাংলা গাইড পড়তে পারেন। 

এই পোস্ট পড়ুনঃ বিসিএস ক্যাডার চয়েস লিস্ট | সেরা টেকনিকে ক্যাডার চয়েস

বিসিএস ক্যাডার চয়েস লিস্ট সেরা টেকনিকে ক্যাডার চয়েস
বিসিএস ক্যাডার চয়েস লিস্ট সেরা টেকনিকে ক্যাডার চয়েস

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার বিষয় ইংরেজি প্রস্তুতি:

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার অন্যতম বিষয় ইংরেজিতেও প্রস্তুতির জন্য ২৫ মার্কের ২৫ টি এমসিকিউ থাকবে৷ নিম্নে ইংরেজিতে প্রস্তুতির জন্য টপিকগুলো দেখে নিন।

  • 1) Sentences
  • 2) Translation from Bengali to English
  • 3) Change of Parts of Speech
  • 4) Right forms of verb
  • 5) Fill in the blanks with appropriate word
  • 6) Transformation of sentences
  • 7) Synonyms & Antonyms
  • 8) Idioms & Phrases

এছাড়াও কলেজ পর্যায়ে শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার জন্য  Errors in composition, Identify appropriate title from story or article, Uses of article, appropriate preposition টপিকের উপর প্রস্তুতি নিতে হবে।

ইংরেজির মৌলিক বিষয়গুলো যেকোনো একটা গাইড বই থেকে ভালোমতো আত্নস্থ করে নিতে হবে। এরপর জব সলিউশনের বিগত ২-৩ বছরের প্রশ্ন সমাধান করতে হবে। উপরের টপিকগুলো নিয়মিত পড়তে হবে। এক্ষেত্রে এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি এর জন্য ইংরেজি শব্দ ভান্ডার সমৃদ্ধ করার জন্য নিয়মিত যেকোনো একটা ভোকাবুলারির বই সিনোনিম এ্যান্টোনিম সহ পড়তে হবে।

সাধারণ গণিত বিষয়ে এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি

সাধারণ গণিতেও ২৫ নম্বর বরাদ্দ থাকে। এখানেও ২৫ টি এমসিকিউ থাকবে। নিম্নে পাটিগণিত, বীজগণিত এবং জ্যামিতির অধ্যায়ের উপর কিছু সাজেশন দেওয়া হলো।

  • ১) পাটিগণিতঃ গড়, ল.সা.গু, গ.সা.গু,  ঐকিক নিয়ম,  লাভ-ক্ষতি,  শতকরা,  সুদকষা, অনুপাত-সমানুপাত।
  • ২) বীজগণিতঃ উৎপাদক, বাস্তব সংখ্যা সমাধানে বীজগাণিতিক সূত্র গঠন ও প্রয়োগ, বর্গ ও ঘনসম্বলিত সূত্রাবলী ও প্রয়োগ, গসাগু, সূচক ও লগারিদমের সূত্র ও প্রয়োগ।
  • ৩) জ্যামিতিঃ রেখা, কোণ,ত্রিভুজ, চতুর্ভুজ, ক্ষেত্রফল ও বৃত্তসম্পর্কিত সাধারণ ধারণা, নিয়ম ও প্রয়োগ

যেকোনো চাকরির পরীক্ষায় গণিতের দক্ষতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে গেলে গণিতের মূল ভিত্তি শক্তিশালী করার জন্য ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির বোর্ড বইয়ের অংকগুলো চর্চার কোনো বিকল্প নেই। ইউটিউবে গণিতের অনেক ভালো ভালো টিউটোরিয়াল আছে,যেগুলো দেখে গণিতের ভিত্তি পাকাপোক্ত করা যায়।এছাড়া দৈনিক কিছু সময় গণিত চর্চা করলে আপনার আত্মবিশ্বাস বেড়ে যাবে। জব সলিউশনের গণিতের আগের প্রশ্নগুলো নিজে নিজে সমাধান করবেন।গণিতের মৌলিক ধারণার পাশাপাশি শর্ট টেকনিক ও শিখে যাবেন, যাতে পরীক্ষার কেন্দ্রে স্বল্প সময়ে সমাধান করতে পারেন।

৪৬ তম বিসিএসঃ কিভাবে ৪৬ তম বিসিএস ক্যাডার চয়েস করবেন | সুবিধা ও অসুবিধা

কিভাবে ৪৬ তম বিসিএস ক্যাডার চয়েস করবেন সুবিধা ও অসুবিধা
কিভাবে ৪৬ তম বিসিএস ক্যাডার চয়েস করবেন সুবিধা ও অসুবিধা

সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে প্রস্তুতি:

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি এর জন্য সাধারণ জ্ঞানেও ২৫ নম্বরের ২৫ টি প্রশ্ন থাকে। যেখানে কিছু প্রশ্ন বাংলাদেশ এবং আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি থেকে আসে। আবার কিছু প্রশ্ন সাধারণ বিজ্ঞান থেকেও করা হয়। নিম্নে বাংলাদেশ, আন্তর্জাতিক এবং সাধারণ বিজ্ঞান বিষয়ের গুরুত্বপূর্ণ টপিক দেখে নিন।

  • ১) বাংলাদেশ সম্পর্কিত বিষয়
  • ২) আন্তর্জাতিক বিষয় ও চলতি ঘটনাবলী
  • ৩) বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, পরিবেশ ও রোগব্যাধি সম্পর্কিত মৌলিক জ্ঞান
  • ৪) বাংলাদেশ সম্পর্কিত বিষয়াবলির মধ্যে বাংলাদেশের ভূপ্রকৃতি ও জলবায়ু,শিক্ষা, ইতিহাস, ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধ, সভ্যতা ও সংস্কৃতি, বিখ্যাত স্থান, বাংলাদেশের রাষ্ট্র ব্যবস্থা, যোগাযোগ ব্যবস্থা, অর্থনীতি, বিভিন্ন সম্পদ (বন, শিল্প, কৃষি, পানি), জাতীয় দিবস  ইত্যাদি থেকে প্রশ্ন হতে পারে।
  • ৫) আন্তর্জাতিক বিষয়াবলিতে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান, আঞ্চলিক ও অর্থনৈতিক সংস্থা, বিভিন্ন দেশ পরিচিতি, মুদ্রা, জলবায়ু পরিবর্তন ও দুর্যোগ, আন্তর্জাতিক দিবস, পুরস্কার ও সম্মাননা, খেলাধুলা ইত্যাদি থেকে প্রশ্ন থাকে।
  • ৬) এছাড়াও স্বাস্থ্য, চিকিৎসা,প্রাত্যহিক জীবনে বিজ্ঞান (পদার্থ, রসায়ন ও জীব বিজ্ঞান সংশ্লিষ্ট), তথ্য , যোগাযগ ও প্রযুক্তি, সাধারণ রোগ ব্যাধি ও পরিবেশ বিজ্ঞান সংশ্লিষ্ট প্রশ্ন থাকে।

এছাড়াও স্বাস্থ্য, চিকিৎসা, প্রাত্যহিক জীবনে বিজ্ঞান (পদার্থ, রসায়ন ও জীব বিজ্ঞান সংশ্লিষ্ট), তথ্য-যোগাযোগ প্রযুক্তি, সাধারণ রোগ ব্যাধি, খাদ্য ও পুষ্টি, আবিষ্কার ও আবিস্কারক এবং জলবায়ু ও পরিবেশ বিজ্ঞান সংশ্লিষ্ট প্রশ্ন থাকে।এ সংক্রান্ত বিসিএস ও অন্যান্য চাকরির পরীক্ষার আগের প্রশ্নগুলো রপ্ত করলেই হবে। সাধারণ জ্ঞানে ভালভাবে প্রস্তুতি নিতে হলে এবং এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি এর জন্য গুরুত্বপূর্ণ বই হলো এমপি থ্রি সাধারণ জ্ঞান এবং কনফিডেন্সের সংক্ষিপ্ত সাধারণ জ্ঞান বই। 

ণৈপুণ্য এপসঃ নৈপুণ্য এপস ব্যবহারের নিয়ম ২০২৩ | রেজিস্ট্রেশন ও লগিন প্রক্রিয়া

নৈপুণ্য এপস ব্যবহারের নিয়ম ২০২৩ | রেজিস্ট্রেশন ও লগিন প্রক্রিয়া
নৈপুণ্য এপস ব্যবহারের নিয়ম ২০২৩ | রেজিস্ট্রেশন ও লগিন প্রক্রিয়া

এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি বিষয়ে কিছু প্রশ্নোত্তর:

১) শিক্ষকগণ কলেজ পর্যায়ে কোন গ্রেডে বেতন পাবেন?

উত্তরঃ শিক্ষকগণ কলেজ পর্যায়ে ৯ম গ্রেডে বেতন পাবেন। 

২) যারা ৩ ও ৪ বছর মেয়াদি ডিপ্লোমাধারী তারা আবেদন করতে পারবে?

উত্তরঃ হ্যা অবশ্যই, ৩ ও ৪ বছর মেয়াদি ডিপ্লোমাধারী তারা আবেদন করতে পারবে। 

৩) যদি কেউ ৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং শেষ করে শিক্ষক নিবন্ধনে কোন বিষয়ে আবেদন তার জন্য ভালো হবে? 

উত্তরঃ ৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং শেষ করে  শিক্ষক নিবন্ধনে ট্রেড ইন্সট্রাক্টর (সংশ্লিষ্ট ট্রেড) বিষয়ে আবেদন করা যাবে। 

৪) গনিত থেকে রিটেনের জন্য অনার্সের  সব সাবজেক্ট পড়তে হবে? নাকি নির্ধারিত কোন সাবজেক্ট পড়লেই হবে?

উত্তরঃ রিটেনের জন্য শুধু গণিত থেকেই পড়তে হবে। 

৫) যারা অনার্স ফাইনাল দিয়েছে কিন্তু রেজাল্ট পায়নি। তারা কোথায় কোথায় আবেদন করতে পারবে?

উত্তরঃ তারা রেজাল্ট না পাওয়া পর্যন্ত কোথাও আবেদন করতে পারবেন না। 

৬) টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এ বিএসসি পাশ করে আবেদন করা যাবে কি?

উত্তরঃ হ্যাঁ, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এ বিএসসি পাশ করে আবেদন করা যাবে। 

৭) যারা মনোবিজ্ঞান থেকে পড়াশোনা করেছে তাদের তো স্কুলে এই বিষয় নাই, তাহলে তারা কি স্কুল পর্যায়ে আবেদন করতে পারবে না?

উত্তরঃ যারা মনোবিজ্ঞান থেকে পড়াশোনা করেছে তাদের তো স্কুলে এই বিষয় না থাকলেও তারা স্কুল পর্যায়ে আবেদন করতে পারবে। 

৮) ডিগ্রী পাশ করে কি আবেদন করা যাবে?

উত্তরঃ না। 

৯) যারা ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শেষ করেছে, তারা স্কুল ও কলেজ পর্যায় উভয়টাতেই কি আবেদন করতে পারবে?

উত্তরঃ হ্যাঁ, যারা ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শেষ করেছে, তারা স্কুল ও কলেজ পর্যায় উভয়টাতেই আবেদন করতে পারবে। 

১০) মেধা তালিকা বলতে কোনটা ধরা হয়? একাডেমী ফলাফলের ভিত্তিতে মেধাতালিকা নাকি লিখিত পরীক্ষার  ভিত্তিতে মেধাতালিকা?

উত্তরঃ এনটিআরসিএ এর নিবন্ধন পরীক্ষায় পাশ করার পর সার্টিফিকেট পেলে সে মেধাতালিকার অন্তর্ভূক্ত হবেন। এর পরে যারা পাশ করে সার্টিফিকেট পাবেন তাদের জন্য এনটিআরসিএ সার্কুলার প্রচার করে থাকে। সেখানে সকল সনদধারীদের আবেদন ও মেধাতালিকার ভিত্তিতে চাকরি পান।   

১১) যদি কেউ BBA 4th year (অধিভুক্ত ৭ কলেজ) এর একজন শিক্ষার্থী হয়ে থাকেন। তার 4th year final exam চলমান। পরীক্ষা শেষ হবে 16 November 2023 তারিখে। এখন কি সে ১৮ তম শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ  পরীক্ষায় (ntrca) অংশগ্রহণ এর জন্য আবেদন করতে পারবে?

উত্তরঃ না, সে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। 

১২) মেডিকেল টেকনোলোজি তে ডিপ্লোমা করে Biochemistry তে বিএসসি পাশ করে কি শিক্ষক নিবন্ধনে রসায়নে বিভাগে প্রভাষক আবেদন করা যাবে?

উত্তরঃ না। 

১৩) যারা Development Studies বিভাগ থেকে পড়াশোনা করেছে তাদের তো স্কুলে এই বিষয় নাই, তাহলে তারা কি স্কুল পর্যায়ে আবেদন করতে পারবে?

উত্তরঃ না তার কলেজ পর্যায়ে আবেদন করতে পারবে। 

১৪) Marketing বিষয় থেকে স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে দুটাতেই  আবেদন  করা যাবে কি?

উত্তরঃ হ্যাঁ যাবে। 

১৫) প্রভাষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা কি এক‌ই ধরনের হয়ে থাকে?

উত্তরঃ না, স্কুল ও কলেজের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা আলাদা হয়ে থাকে। 

১৬) রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয় থেকে কোন কোন পদে আবেদন করা যাবে?

উত্তরঃ শুধু রাষ্ট্রিবাজ্ঞনেই আবেদন করা যাবে। 

১৭) অনার্স দিয়ে কি প্রভাষক এ আবেদন করা যাবে?

উত্তরঃ হ্যাঁ, অবশ্যই। 

১৮) যদি কেউ অন্য বিভাগের স্টুডেন্ট হয় তারা কিন্তু স্নাতক পর্যায়ে বাংলায় ৩০০+ নম্বর ছিল। তাহলে কি তারা বাংলায় এপ্লাই করতে পারবে?

উত্তরঃ না। 

১৯) জুনিয়র শিক্ষক হিসেবে কি নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আবেদন করা যাবে নাকি কেবল মাদ্রাসার জুনিয়র শিক্ষক হিসেবেই আবেদন করা যাবে?

উত্তরঃ উভয়ই। 

২০) লোকপ্রশাসন থেকে পড়ে স্কুলে আবেদন করা যাবে?

উত্তরঃ না। 

২১) নিবন্ধন পরীক্ষা সাধারণত কত মাস পর হয়?

উত্তরঃ নিবন্ধন কর্তৃপক্ষ ব্যতীত কেউ বলতে পারবেনা। 

২২) লিখিত পরীক্ষা কি নিজ বিষয় থেকে হবে।

উত্তরঃ হ্যাঁ। 

২৩) স্কুল পর্যায়- ২ এ লিখিত পরীক্ষা কি কি বিষয় এর উপর হবে?

উত্তরঃ আলীম, ট্রেড ইন্সট্রাক্টর এবং ডিপ্লোমার বিষয়ের উপর।  

২৪) এইচএসসি পাসে কি এবতেদায়ীতে এপ্লাই করা যাবে?

উত্তরঃ হ্যাঁ। 

২৫) B.ED করা না থাকলে কি আবেদন করা যাবে?

উত্তরঃ হ্যাঁ।  

২৬) সহকারী শিক্ষক পদে ভৌতবিজ্ঞানের ক্ষেত্রে কি পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন দুটি বিষয়ের সমন্বয়ে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে?

উত্তরঃ না। 

২৭) স্কুল কলেজ দুইটাতেই আবেদন করা যায়?

উত্তরঃ হ্যাঁ। 

২৮) Sociology বিষয় থেকে স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে দুটাতেই  আবেদন  করা যাবে কি?

উত্তরঃ হ্যাঁ যাবে। 

সর্বশেষ কথা:

পরিশেষে এ কথা বলা যায় যে, এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি এর জন্য শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার প্রিলিমিনারিতে পাস করা খুব একটা কঠিন কাজ নয়। এজন্য দরকার আপনার মনোবল, পরিশ্রম করার ইচ্ছা ও পরিকল্পিত প্রস্তুতি। মনে রাখবেন, পরিশ্রম কখনো বৃথা যায় না। কোন না কোন চাকরীর পরীক্ষায় তা কাজে লাগবেই।

আরো মনে রাখবেন, সামান্য পরিশ্রম করে প্রস্তুতি নিলেই এই পরীক্ষায় আপনার খারাপ করার কোন কারনই নেই। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে, আমরা সফল হতেও চাই, পরিশ্রম করতেও ভালো লাগে না। এবার যেন আপনাকে আলসেমিতে না পেয়ে যায়, সেটি নিশ্চিত করতে হবে আপনাকেই। আর কিছুই বুঝে উঠতে না পারলে, আপনি সময় নষ্ট না করে আজ থেকেই এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি শুরু করে দিন। শিক্ষকতার মত মহৎ পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করতে আপনার জন্য রইল অনেক অনেক শুভ কামনা।

 

Visited 1,561 times, 1 visit(s) today

6 thoughts on “এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি, যোগ্যতা ও পদ্ধতি”

  1. ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং এ বিএসসি পাশ করে কোন পর্যায়ে আবেদন করতে পারবো?পদার্থ ৩০০ এবং গণিতে ৫০০মার্কসের কোর্স ছিলো…

    Reply
  2. অনেক তথ্য জানতে পারলাম। খুব বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতির ভিতর ছিলাম, বিষয়গুলো পরিষ্কার হলো। জাজাকাল্লাহ খাইরান

    Reply
    • অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে। এ সম্পর্কিত আরো কিছু জানার আগ্রহ থাকলে কমেন্ট করে জানাবেন।

      Reply
  3. চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভাষাবিজ্ঞানে অনার্স শেষ করে আবেদন করা যাবে?

    Reply

Leave a Comment

You cannot copy content of this page